ভাবির বোন । পর্ব – ২২

বৈশাখী:আপনি আপনার বাইক চালান আমাকে আমার কাজ করতে দিন
(ও তাহলে এই কাহীনি ভয় টয় কিছু না জড়িয়ে ধরার ধান্দা)
আমি:আপনি ছাড়ুন আমাকে এভাবে ধরে রাখলে আমি বাইক চালাতে পারবো না
বৈশাখী:ধুর চালান তো পারবেন(জড়িয়ে ধরে)
আর কিছু না বলে বাইক চালানো শুরু করলাম এখন দুজন’ই নিরবতা পালন করচ্ছি বৈশাখী অনেক কিছুই বলচ্ছে আমি কথা বলচ্ছি না
বৈশাখী:চুপ করে আছেন কেনো
আমি:বাইক চালানোর সময় কথা বলা ঠিক না চুপ থাকুন(বিরক্তি নিয়ে)
বৈশাখী:হুম
(তো একটু সময় নিরবতা পালন হলো একটু পর আবার শুরু)
বৈশাখী:বাইক থামান বাইক থামান বাইক থামান প্লিজ বাইক থামান(উত্তেজিত হয়ে)
আমি:কেনো কি হয়েছে(ভয় পেয়ে)
বৈশাখী:হুম
আমি:কি হয়েছে বলবেন তো Are you ok
বৈশাখী:আমি ঠিক আছি
আমি:তাহলে হঠাৎ করে বাইক থামাতে বললেন কেনো
বৈশাখী:হুম(আঙুল দিয়ে ইশরা করে)
আমি:কি ওদিখে(বলে তাকালাম রাস্তার ওপাশে যে দিখে ইশারা করছে)
আমি:তো সুন্দর করে বললেই তো হতো
বৈশাখী:আমি ফুচকা খাবো
আমি:জীবনের প্রথম খাবেন তাই না
বৈশাখী:এভাবে বলচ্ছেন কেনো
আমি:আপনার ব্যবহারে বুঝলাম যে জীবনের প্রথম আজ আপনি ফুচকার দোকান দেখেছেন তাই এত উত্তেজিত
বৈশাখী:আপনি কিন্তু অপমান করচ্ছেন আমায়……..
চলবে…