ভাবির বোন । পর্ব – ২৩

আমি:অপমান করলাম কই যা মনে হলো তাই বললাম
বৈশাখী:ফুচকা আমার অনেক পছন্দ তাই এমন করছি আর এমনি তেও যখন বাসা থেকে বের হইছিলাম তখনো একবার খাইছি
আমি:তাহলে এখন খাবেন কেনো
বৈশাখী:আমার ইচ্ছা চলুন(বলেই দৌড়াতে যাবে)
আমি:ও হ্যালো দৌড়াচ্ছেন কোথায় এটা মেইন রোড আপনার বাড়ির উঠন না(হাত ধরে)
বৈশাখী:হুম সরি
আমি:হু দৌড়াতে যাচ্ছিলেন কোনো গাড়ি এসে ঠুস করে উরিয়ে দিলে বুঝতেন মজা
আমি:চলুন এবার(বলে এগুতে লাগলাম এখন দেখি দাড়িয়ে আছে)
আমি:কি হলো দাড়িয়ে রইলেন কেনো?
বৈশাখী:ভয় করচ্ছে
.
আমি:কিসের
বৈশাখী:রাস্তা একা একা পার হবো তাই ভয় করচ্ছে
আমি:একা কই আমি আছি তো সাথে
বৈশাখী:আছেন তো কিন্তু আপনি তো আর হাত ধরে রাস্তা পার করাবেন না
(এবার বুঝতে পারছি আবার অভিনয় করচ্ছে আমিও কম কিসে)
আমি:হুম সত্যি’ই তো এটা ভেবে দেখা হয় নি আচ্ছা আপনি একটা কাজ করুন
বৈশাখী:হুম বলুন কি করবো(অনেক খুশি হয়ে)(হয়তো হাত ধরার কথা বলবে)
আমি:বাইকে উঠুন রাস্তার ওপাশে নিয়ে যাচ্ছি
বৈশাখী:থাক লাগবে না আমি একাই পার হতে পারবো(অভিমানী কন্ঠে)
আমি:ও আচ্ছা তো চলুন(এবার এসেছো বাচা লাইনে)
(তো ম্যাডাম আগে আগে খুব সর্তকতার সাথে রাস্তা পার হচ্ছে আর আমি পিছে পিছে)
চলবে….