ভালোবাসা সমীকরন

পৃথিবীর সবকিছুর ভাগ-বাটারি করা গেলেও
কেউ কখনও নিজের ভালোবাসার মানুষের ভাগ-বাঁটোয়ারা ভুলেও করতে চায় না।
প্রতিটা মানুষ’ই তার নিজের জীবনের মাঝে এমন একজন মানুষ খুঁজে বেড়ায়,
যে কি’না বেলা-অবেলায় নিজের কাছে ও পাশে দু’জায়গাতেই সবসময় সমানভাবে থেকে যেতে পারে।
এমনকি সে মানুষটা যেন প্রতিনিয়ত চোখের ভাষা বোঝার পাশাপাশি আবার মনের কথা বোঝারও যথেষ্ট ক্ষমতা নিজের মাঝে রাখতে পারে।
আর শেষমেশ একটা সময় যখন কোনো না কোনো ভাবে একটা মানুষ তার নিজের জীবনে
ঠিক তার মনের মতোনই একজন আপন মানুষ পেয়ে যায়,
তখন নিজের সবকিছুর বিনিময়ে হলেও সে মানুষটা তার এই মনের মানুষকে
আকঁড়ে ধরে রাখার চেষ্টা চালিয়েই যায়।
.
সেখানে আর যাই হোক নিজের জীবন জাহান্নামে চলে গেলেও,
এই নিজের মানুষকে কখনওই কেউ কোনোভাবে কোনো কম্প্রোমাইজ
বা কোনো স্যাকরিফাইস একটুও করতে চায় না।
ভালোবাসা যেমন হুট করেই মন নরম করে জীবন সুন্দর করে তোলে;
তেমনি এই ভালোবাসাটাই আবার কখনও কখনও একটা মানুষের মন শক্ত করে
সে মানুষটাকে খুব জেদি আর স্বার্থপর করে তোলে।
সেক্ষেত্রে নিজের মানুষকে ভালোবাসায় আকঁড়ে রাখার জন্য খানিকটা জেদি আর স্বার্থপর হলে
সেটা একটুও দোষের কিছু নয়। কারণ, মানুষ শুধু একটা ভালো থাকবে
আর নিজের মাঝে খানিকটা মানসিক শান্তি খুঁজে পাবে বলেই
অন্য একটা মানুষের হাত খুব বিশ্বাস নিয়ে আকঁড়ে ধরে।
নিজের ভালো থাকা আর যাই হোক কোনো পাগলও কখনও কম্প্রোমাইজ বা স্যাকরিফাইস করতে চাইবেনা।
ভালো থাকুক ভালোবাসা, নিজের হয়ে থাকুক নিজের ভালো থাকা।