টুকরো চুকরো গল্প

টুকরো নং -০১

কাউকে মুগ্ধ করবার মতো
আমার কোন রুপ বা গুন নেই,
আমি অসম্ভব সুন্দরী নই!

আমার গায়ের রং ততটা উজ্জ্বল নয়,
আমার লম্বা চুল বা ড্যাব ড্যাবে চোখ নেই।
আমার জোড়া ভ্রু,ঠোঁটে তিল বা গালে টোল নেই,
আমার গানের সুরেলা কন্ঠ নেই।
আমি তেমন সুন্দরি নই!

আমার গায়ের রং চাপা, সুরু নাক,ছোট চুল
চোখের নিচে কালো দাগ,মুখে চিন্তার ছাপ আছে।
আয়নায় আমি আমার এই প্রতিছব্বি দেখলে
আমি তাকে তাচ্ছিল্য করতে পারি না,
আমার আমাকে এভাবেই ভালো লাগে।

আমাকে দেখে যদি কুৎসিত মনে হয়,
তাকিয়ো না আমার দিকে,
তবু নিন্দা করো না অহেতুক ।

আমার বাবার বিশাল প্রতিপওি নেই,
কোন যশ বা খ্যাতি নেই
স্বল্প পরিমানে আয় অাছে।
আমি মধ্যবিও পরিবারের মেয়ে
আমার অসম্ভব ধৈর্য আছে।
আমি রুপে তেজস্বী নই
আমার মেনে নেওয়া ও মানিয়ে নেওয়ার মতো গুন আছে।

টুকরো নাং -০২

“আপনাকে ভালোবাসি” বাক্যটির ওজন কত আমি জানি না!
তবে বাক্যটি উচ্চারণ করতেই বুক ভারী হয়ে ওঠে।

” আপনাকে ভালোবাসি” এ ভালোবাসা কতটা পবিএ আমি জানি না!
তবে আমার কাছে এই অদৃশ্যমান অস্পর্শনীয়,
অনুভূতি গুলোই শ্রেষ্ঠ।

” আপনাকে ভালোবাসি” এ ভালোবাসার অনুভূতি কেমন আমি জানি না!
তবে আপনাকে মনে পরতেই যে আনন্দ অনুভব হয়,
তা পৃথিবীর সকল অনুভূতি কে হার মানায়।

“আপনাকে ভালোবাসি” এ ভালোবাসার রং গন্ধ আছে কিনা আমি জানি না!
তবে আপনি ব্যতীত পৃথিবীর সব রং ধূসর মনে হয়।

“আপনাকে ভালোবাসি” এ ভালোবাসা পরিমাপ করবার মতো,
কোন বাটখারার সন্ধান নেই জানা!

টুকরো নং -০৩

তুমি কাউকে মন থেকে ভালোবেসে ছিলে,
বিনিময়ে পেয়েছো শুধুই অবহেলা।
তাই তোমার মনে হয়
ভালোবাসা বলতে কিছু নেই জগতে
ভালোবাসার নামে,সুখ টুক কেড়ে নেওয়ার ছলাকলা।
অথচ তুমি জানো না!
ভালোবাসা বলতে সবই আছে
শুধু তুমি পাওনি সঠিক মানুষের ঠিকানা।

টুকরো নং -০৪

একদিন সব ঠিক হয়ে যাবে,একদিন সব ঠিক হয়ে যাবে
এটি একটি প্রচলিত মিথ্যা কথা
খুব বাজে ধরনের মিথ্যা কথা।
সব কখনো ঠিক হয় না!

একদিন সব ঠিক হয়ে যাওয়ার আশ্বাসে,
কেটে যায় বছর ।
অথচ কিছুই ঠিক হয় না!
একদিন সব ঠিক হয়ে যাওয়ার,
প্রহর যেন শেষ হয় না
সব কখনো ঠিক হয় না!

সাদা কখনো কালো হয় না,
সবুজ কখনো লাল হয় না
এক এক মিলে তিন হয় না।
কষ্টের রং কখনো ধুয়ে মুছে যায়না,
আমরা শুধু মেনে নিতে শিখি,মানিয়ে নিতে শিখি
যখন দেখি কষ্টটি যাবার নয়
তখন তাকেই আপন করে নেই।
দূর থেকে দেখলে তা বোঝা যায় না,
সব কখনো ঠিক হয় না!

টুকরো নং -০৫

তুমি কাছে থাকলে,
জেগে ওঠে শিহরণ
মনে হয় বসন্ত, চারিদেকে ফুলে ফুলে সারা।

দূরে গেলে,
জমে ওঠে কালো মেঘ
মনে হয় ঘনঘোর বর্ষা।

টুকরো নং -০৬

আমাদের রক্তের বন্ধন,যাদের মোরা আত্মীয় বলে করি সম্বোধন ।
সামনে দিয়ে আপন-আপন
পেছন দিয়ে তারাই করে ছলচাতুরি,
বিধিঁয়ে দেয় যন্ত্রণাময় বিষের ছুরি ।

টুকরো নং -০৭

আমার বিষন্ন রাত,
অন্ধকার রুমে শুয়ে সুনশান
মাঝে মাঝে কানে ভেসে আসে কিছু ঝিঁঝিঁ পোকার ডাক।
আমি প্রভাতের অপেক্ষায় থেকে,
নিজে জেগে রাতকে ঘুম পাড়াই।

টুকরো নং -০৮

আমি সেদিন বুঝি নি
ভালোবাসার পরির্বতে,
তোমার চোখে ছিল গাঢ় প্রতারনা।
তবে আমি জানতাম,প্রতারকরা হৃদয়ে স্থান পায় না,
অথচ আমার ক্ষত-বিক্ষত হৃদয় টাও আজ আমার কথা কয় না।
তোমার দেওয়া ব্যথাগুলো আমাকে,
রাএিতে ঠিক আগের মতো ঘুমোতে দেয় না।