অপ্রিয় সত্য

একটা সময় আসে যখন খুব কাছের মানুষটাকে সবচেয়ে অপরিচিত মনে হয়। ব্যস্ততা নামক একটা কথা দু’টি মানুষকে ঠেলে দেয় মাইলের পর মাইল দূরত্বে।
কাউকে কারো বলার সময় হয়ে ওঠে না ভালোবাসি তোমায়! মুখের মধ্যে লোক দেখানো হাসির রেখাটা থাকলেও মনের মধ্যে ক্ষত-বিক্ষত ভালোবাসা নামক অনুভব-টা।
কখনো বা সেই আগের মতো মাঝরাতে আড়ি পেতে দেখা হয়না প্রিয় মুখটাকে। কিংবা শেষ রাতে জাগিয়ে বলা হয় না, বলো না ভালোবাসি!

একটা ব্যস্ততার দীর্ঘশ্বাস দুটি মনের মধ্যে জমে থাকা অভিমানের চাদরটা আরো দীর্ঘ করে । একই ছাদের নিচে একটা বিছানায় ঘুমানো হয় ঠিকই, কিন্তু এই কয়েক ইঞ্চির ব্যবধান যেনো একটা সময় গ্যালাক্সি থেকে গ্যালাক্সি সম পরিমান দূরত্ব বাড়িয়ে তোলে।
কখনো বা মনে হয়, তার কানে কানে বলি, এই ভালোবাসি খুব।
অজানা কারনে থমকে যাওয়া হয়, সে যদি বলে আমি ব্যস্ত, তার কানের কাছে এসেও বলা হয়নি ভালোবাসি তোমায় ।

আজ দুইটি হৃদয় হয়তো একটা কারণে বিচ্ছিন্ন, ব্যস্ততা।
হয়তো-বা বিষয়টা এমন হলেও পারতো, শত ব্যস্ত থাকার পরেও প্রিয় মানুষটিকে একবার বলা হতো ভালোবাসি তোমায় ।
দিনের শেষে রাতের স্বপ্নটা ভাগাভাগি করে দেখা যেতে পারতো।
কানে কানে বলা যেতো এই ভালোবাসি তোমায়, বা সন্ধ্যের হালকা মেঘলা আকাশে পূর্ণিমার বিশাল চাঁদের নিচে বসে জোৎস্না স্নান শেষে চুমু খেয়ে বলতে ভালোবাসি খুব।
তখন হয়তো অবসান হতো ব্যস্ত নগরীর এই ব্যস্ততার, জয় হতো স্বপ্নিল ভালোবাসার।