কেউ কারো না

নগরীর অলিতে গলিতে আমার নিখোঁজ সংবাদ ছাপিয়ে গেলো!

ঠোঁটে মুখে রটে ছিলো একটি মাত্র নাম। বিনামূল্যে পথে হাতে পত্রিকা খাম।

হাঁটু ভাঙ্গা মহলে খেদোক্তি হলো।কাকেরা সুর তুললো।

ক্যাম্পাসের দেয়ালে টাঙিয়ে দিলো মোটা অক্ষরের শিরোনাম।

তবুও যে দুয়ার ডিঙ্গিয়ে দুঃখের সমুদ্রে ডুব দিয়েছিলুম ;

সে আমার খোঁজ নিলো না! তার নয়ন এড়িয়ে চললো বাতাসের বার্তা!

বাড়তি খরচের অজুহাত দেখিয়ে ক্রয়ে বয়ে আনলো না ব্রেকিং নিউজের পাতা।

সে আমার দুঃখে ;দুঃখু হলো না!

সে আমার নিখোঁজে উন্মাদনায় টাক করলো না জামতলার জারুল বৃক্ষ।

আমার নামে বাধিয়ে ফেললো না দু’একটা এক্সিডেন্ট!

মেইন রোডে- রোডে চললো না কোনো হরতাল ,অবরোধ।

সে আমার অপেক্ষক হলো না! সে আমার আমি হলো না।

আমি তার হলাম কোন সংবিধানে? লিখিত? না মৌখিক!!!

জ্ঞান ফিরলে জানলুম ;আমরা কেউ কারো না। আকাশ নীলে না।

দেবদাস পারুর না। নিখিলেশের বিমলা কখনো হবে না।

অতঃপর আমরা কোথাও কেউ কারো না!”কেউ কারো না “