মা গো ওরা পোড়ালো না কেন আমায়

মা গো ওরা পোড়ালো না কেন আমায়

মা গো, ওরা বলে আমার সন্মান কেড়ে নেবে

তোমার কাছে আর যেতে দেবে নাবলো মা, তা কি হয়?

ঘড়ির কাটার দিকে তাকাচ্ছো বারবারআর বলছো খুকি,

তুই কখন আসবি? কখন ছুটি?

মা গো, আমি যে তোমার কাছেই যাচ্ছিলাম মাওরা যে আমায় নিয়ে গেলটেনে হিঁচড়ে নিয়ে গেল মা।

মা গো, জানো, ব্যথার যন্ত্রনায় একটু চিৎকারও করতে দেয় নি।

তুমি আমার যে চুল আঁচড়ে দিতে, সেগুলো ছিড়ে আমার মুখের ভেতর ভরে দিয়েছিল মা।

জানো মা, আমার খুব কষ্ট হয়েছিল। বাঁচতে দিল না মা।

একটু মিনতি করার সুযোগটাও দিল না।

আর কয়দিন পর, নুসরাতও আমার কাছে এল শুনেছি ওর সন্মানও রক্ষা পায় নি।

মা গো, ওর শরীরের আঘাত কারও চোখে পরে নি। ওর পোড়া গন্ধ পেয়েছিল।

তাই ওর খুনের বিচার হয়েছে মা।ওরা যখন আমায় মেরেই ফেললমা গো,

ওরা কেন পোড়ালো না আমায়? মা, প্রায় পাঁচ বছর পার হয়ে গেল মা,

তোমরা কেন ওদের শাস্তি দাও না গো মা???

মা গো, ওদের যদি আবার খিদে পায়ওদের বলো,

ওদের খিদে মেটার পর ওরা যেন পুড়িয়ে দেয়।

পোড়া গন্ধই তো পোড়া দেশ পায় মা।

ওরা আমার দেশকে দেখতে দেয় না মা।