কেনো এতো অভিমান/ আমি নই একা

কেনো এতো অভিমান

বহুদিন দেখা হয় না কথা হয় না গোপনে ।

বলা হয় না ভালোবাসি নিভৃতে যতনে ।

চলা হয় না পথ হাতে রেখে হাত ।

কুয়াশার চাদরেই মোড়ানোআমি একা নির্বাক ।

কাশফুলের রাজ্যে হয়না ঘুরে বেড়ানো ।

দর্শন করা হয় না জোনাকির আলো ছড়ানো ।

তুমি নেই বলে পাখির কলকাকলি মুগ্ধ করে না ।

ময়না টিয়েরাও আজ নাম ধরে ডাকে না ।

চাঁদের আলোয় উদ্ভাসিত রাত ,আমার তো দেখা হয় না ।

হয় না, গাওয়া গান ।

হে শ্রোতা ,

তোমার কেনো এতো অভিমান!হয় না বকুলের গন্ধ পাওয়া মালা বাড়িয়ে দেওয়া দুহাত ।

চোখেতে চোখ পড়ে নাকেনো‌ আজ ভালোবাসার অভাব !

আমি নই একা

আমি নই একা ,আমি পেয়েছি প্রকৃতির দেখা ।

যেখানে ভাসিয়ে দিয়ে স্বপ্ন,ক্ষণিকের জন্য পেয়েছি সুখের রেখা ।

আমি নই একা। বাতাস কানে কানে বলে যায় ।

চলে গেলে কি উপায় !হাতছানি দিয়ে কে ডাকবে তোমায় ?

সূর্য বলে যায় ,ডুবে যাবো আমি ,

রেখে যাবো অন্ধকার ।হারিয়ে যাবে যে অভুজ ধরায় ।

নদী বয়ে যায় , সাগর মোহনায় ।

ছোট ছোট ঢেউ এসে ,পা গুলো ভিজিয়ে দিয়ে বলে যায় ।

যারা আসে চলে যায় । আমি থেকে কি উপায় ?

তাই দিয়ে গেলাম অনুভূতি তোমায় ।

মাজি বলে যায় , হে পথিক ভাই ,

তুমি একা কেন, আর কেউ নেই ?

আমি হেসে দিয়ে বলে যাই ।

আশেপাশে সবাই আমার আপন আপনার কাহাকে চাই?

এমনিতে বলতে চাই, তুমি একা দাঁড়িয়ে তাই ।

কে বলেছে আমি একা , আমি নই একা ,

আমার সাথে আছে অনুভূতির ছোঁয়া ।

বুঝে গেছি ভাই, আপনার কি চাই ।

বাদ্য আমি , আমার তরীতে নেই কোন ঠাঁই ।

চলে গেলো মাজি , বুঝলনা আমার মন ।

আমি এসেছি প্রকৃতির ডাকে ।

কেনো চাই আপন জন? কে বলেছে আমি একা ?

আমি নই একা , আমি পেয়েছি প্রকৃতির দেখা ।