বিয়ের আগেই বাসর | পর্ব-০২

গান বন্ধ করে ওয়াশরুমে গিয়ে শাওয়ার শেষ এ নিচে আসি। এসেই প্রায়ই ১০০ টি মিসকল ফোনে। কল ব্যাক করতে যাবে তখন আবারো ঝিনুকের ফোন আসে। রিসিভ করতেই…. –হ্যালো ফয়সাল। একটা কথা বলার জন্য তোকে ফোন দিসি। আসলে নিঝুম খুব ভালো মেয়ে। আর ও খুব গরিব। ওর একটা ছোট বোন আছে। Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -০১

ভালোবেসে সখী নিভৃতে যতনে আমার নামটি লেখো তোমার মনেরও মন্দিরে ” । গানটি গুন গুন করে গাইছিলাম আর গ্লাসে পানি ঢালছিলাম। হঠাৎ ড্রয়িংরুম থেকে আওয়াজ এল, – তোর বড় মেয়েকে আমি আমার সায়নের বউ করতে চাই লিমা। কথাটা আমার কানে আসতেই আমার মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পরলো। যে মানুষটাকে আমার ছোট Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -০২

বাসায় এসেই মনটা ভালো হয়ে গেল। কারণ আম্মু বলেছে খালামণি নাকি আমাকে তাদের বাসায় যেতে বলেছে। এ তো মেঘ না চাইতেই জল। এরমানে হচ্ছে সায়ন ভাইয়ার সাথে আমার আবার দেখা হচ্ছে। রেডি থাকুন মিস্টার সায়ন। আমার থেকে আপনি যত দূরে যেতে চাইবেন আমি ততই আপনার কাছে যাবো। তাড়াতাড়ি করে রেডি Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -০৩

খাটে সেই দু ঘন্টা ধরে এপাশ ওপাশ করছি। কিছুতেই ঘুম আসছে না। ঘুমেরা যেন আজ শপথ নিয়েছে তারা আমার চোখে ধরাই দেবে না। না চাইতেও সায়ন ভাইয়াকে নিয়ে আমি বারবার ভেবে ফেলছি। যতই তাকে মন থেকে সরিয়ে ফেলতে চাই না কেন সে যে আমার সবটা জুড়েই বাস করছে। তাকে এত Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -০৪

আমরা সবাই হসপিটালে এসে দেখি খালামণি আর আঙ্কেল আগেই চলে এসেছে। খালামনি বসে বসে মুখে হাত দিয়ে কান্না করছে। আপু এবার কান্না করা শুরু করে দিল। খালামণির পাশে বসে আপুও এবার কান্না করেই যাচ্ছে করেই যাচ্ছে। আপু অল্পতেই ইমোশোনাল হয়ে পড়ে সেটা আগেও বলেছি। আমি এক কোণায় মাথা নিচু করে Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -০৫

তাড়াতাড়ি ডিনার করে শুয়ে পরেছি আজকে। কারণ ঘুম যেন তাড়াতাড়ি চলে আসে। কয়েক রাত নির্ঘুমে কেটেছে। এবার যদি না ঘুমাই তাহলে অসুস্থ হয়ে যাবো। সেজন্যই তাড়াতাড়ি শুয়ে পড়া। কিন্তু মনে হচ্ছে না নিদ্রাদেবী আমার চোখে ধরা দেবে। কারণ অলরেডি দুঘন্টা হয়ে গেছে আমি চোখ বন্ধ করে শুয়ে আছি। আমি যখন Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -০৬

যতই সায়ন ভাইয়ার দিকে তাকাবো না ভাবছি ততই ওনার দিকে চোখ চলে যায়। একেই বোধহয় বলে বেহায়া। ওনি বাইরের দিকেই তাকিয়ে ছিলেন। হঠাৎ আমার দিকে তাকিয়ে ফেললেন। আমি যেহেতু ওনার দিকেই তাকিয়ে ছিলাম। দুজনের চোখে চোখ পড়ে গেল। আমি তাড়াতাড়ি করে চোখ নামিয়ে নিলাম। আর ওদিকে তাকানোর সাহস হয়নি। সারা Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -০৭

আমি বিচে দাঁড়িয়ে আছি। সূর্যাস্ত দেখার জন্য অনেকেই ফ্রেশ হয়ে বিচে এসেছে। আমি আর সারাও এসেছি। আমি চুপচাপ সমুদ্রের দিকে তাকিয়ে আছি। সমুদ্রের বিশালতা দেখে মনটা কেমন হু হু করছে। আমি যদি সমুদ্রের এই বিশালতায় হারিয়ে যেতে পারতাম তাহলে কতই না ভালো হতো। সায়ন ভাইয়াকে কখনো বোধহয় আপুর হাজবেন্ড হিসেবে Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -০৮

সারার কথার কোনো জবাব আমি খুঁজে পাচ্ছিলাম না। সারাকে কেমন যেন আমার কাছে বড়ই গম্ভীর মনে হচ্ছে। এই সারাকে তো আমি ছিনি না। – কি আমি ভুল কিছু বলেছি? আমি চমকে উঠে উত্তর দিলাম, – নাহ। – তোকে বারবার এত অপমান করার পরও তুই কেন সায়ন ভাইয়ার কাছে ছুটে যাস Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -০৯

সায়ন ভাইয়ার সেই শান্ত দৃষ্টি বলে দিচ্ছে সায়ন ভাইয়া খুব চিন্তিত। কিসের জন্য ওনি এত চিন্তা করছেন? ভালোবাসার মানুষের জন্য মানুষ চিন্তা করে ওনি তো কাউকে ভালোবাসেন না তাহলে? – কিরে কেমন আছিস তুই? ওনার কথায় চমকে উঠে বললাম, – ভালো আছি। – হাতের কাটা জায়গা থেকে আর ব্লিডিং হইছে? Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -১০

সময়ের গতিতে সময় চলতে থাকে। আর মানুষের জীবনটা সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে গড়াতে থাকে। সময় যেমন কখনো থেমে থাকে না ঠিক তেমনি জীবনও থেমে থাকে না। আসলে জীবনটা হলো সময়ের সমষ্টি। সময় নিয়েই জীবন গঠিত হয়েছে। সবার জীবন খুব ভালোভাবেই এগুচ্ছে কিন্তু আমার জীবনটা যেন কোনো থমকে যাওয়া পথিকের ন্যায় Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -১১

এংগেজমেন্টের পর কেটে গেছে আরও তিনটা দিন। এ কদিনে ইরাম ভাইয়া আমার সাথে নানান কথাই বলার জন্য কল দিয়েছেন। কিন্তু আমি প্রয়োজনের বেশি একটা কথাও বলি নাই। আসলে আমার কথা বলতেই ভালো লাগে না। হুমম যদি ইরাম ভাইয়ার জায়গায় সায়ন ভাইয়া হতেন তাহলে অন্য কথা ছিল। আমি বোধহয় কখনোই ইরাম Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -১২

পাঁচ মিনিটের মত হয়ে গেছে আমি ইরাম ভাইয়াররুমের সামনে দাঁড়িয়ে আছি। ওনার রুমের দরজাটাএকটু ভেজানো সেজন্যই আমি ইতস্তত করছি ভেতরেঢুকতে। এভাবে কারো রুমের দরজা খুলে ভেতরে ঢুকেযাওয়াটা বড়ই দৃষ্টিকটু লাগে। সেজন্য রুমের বাইরেদাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছিলাম। ওনি যদি বের হন তাহলেআমি ওনাকে বলেই ঢুকবো। আমি এসব মনে মনেভাবছিলাম তখনি ইরাম ভাইয়া Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -১৩

আমি কত বোকা। সায়ন ভাইয়া তার কাঁধে মাথারাখতে বলেছে বলে আমি ভেবেছিলাম ওনি হয়তোআমাকে ভালোবেসে মাথা রাখতে বলেছেন। কিন্তুআমার ভাবনায় তিনি এক বালতি পানি ঢেলে দিয়েবললেন ওনি নাকি এমনিই একথাটা বলেছেন। আরআমিও সেটাই বিশ্বাস করে ফেললাম। আমি একটাকথা বারবার ভুলে যাই যে সায়ন ভাইয়া আমাকেকখনোই ভালোবাসতে পারবেন না। আর এবার Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -১৪

আজ আমার আর আপুর বিয়ের শপিং করা হবে।সেজন্য আমার কিছু কাজিন পিয়া আপু, জারা আপুআর রিদন ভাইয়া এসেছে। আমি সারাকে বলেদিয়েছি বিকেলের দিকে আমাদের বাসায় আসারজন্য। সারা ছাড়া আমার কোনোকিছু করতেই ভালোলাগে না। একটা লিপস্টিক কিনবো সেটার জন্যওআমার সারাকে প্রয়োজন। হুমম মাঝে মাঝে সারারসাথে আমার খুব রাগ হয় কিন্তু সারাকে Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -১৫

শপিংমলের ভেতরে এসে দেখলাম ইরাম ভাইয়া আরসায়ন ভাইয়া কথা বলছে। ঐদিকে ইরাম ভাইয়ারআম্মু আর খালামণি আলাপ জুড়ে দিয়েছে। ইরামভাইয়া আর সায়ন ভাইয়া আমাদের থেকে অনেকটাদূরে দাঁড়িয়ে আছে। তাই তারা কি বিষয়ে কথা বলছেসেটা আমি শুনতে পারছি না। কথা বলতে বলতেইরাম ভাইয়া হাসিতে ভেঙ্গে পরছে। আর সায়ন ভাইয়াভাবলেশহীন ভাবে দাঁড়িয়ে আছে। Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -১৬

পুরো বাড়ি মানুষে ভর্তি হয়ে আছে। কোথাও এতটুকুফাঁক পাওয়া যাবে না। আমি তো এত মানুষ দেখেপাগলই হয়ে যাচ্ছি। আর আম্মু রান্না -বান্না করতেকরতে পাগল হয়ে যাচ্ছে। যদিও সবাই আম্মুকেসাহায্য করছে তারপরও দুই মেয়ের বিয়ে আম্মু কিআর হাত গুটিয়ে বসে থাকতে পারবে। কাল আমারআর আপুর গায়ে হলুদ। আজকেই প্রায় সবাই চলেএসেছে। Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -১৭

পুরো বাড়ি আজ ফাঁকা। কারণ সবাই কমিউনিটিসেন্টারে। বাড়িতে শুধু আমি, আপু আর সারা আছি।আমরা দু বোন বাড়ি থেকে সেজেই কমিউনিটিসেন্টারে যাবো। পার্লার থেকে মহিলারা এসে আমাদেরসাজিয়ে দিয়ে যাবে। আর সারার কাজ হলো আমাদেরদুই বোনকে রেডি করে কমিউনিটি সেন্টারে নিয়েযাওয়া। আজ বাড়ি ফাঁকা হওয়াতেও আমার ভালোলাগছে না। বিয়ের আগ পর্যন্ত তো Continue Reading →

ভালোবাসি তাই । পর্ব -১৮

যখন আমার জ্ঞান ফিরলো আমি বুঝতে পারলাম নাআমি বেঁচে আছি নাকি মরে গেছি? আমার চোখদুটোযেন আঠার মত লেগে আছে আমি জোর করেও চোখপুরোপুরি খুলতে পারছি না। আমার কানে কারোগুনগুন করে কান্নার শব্দ আসছে। কিন্তু আমি কাউকেদেখতে পাচ্ছি না। আমি তো রাস্তায় পরেছিলাম আমিকি এখনো রাস্তায়? আমি জোর করে চোখদুটো একটুখুললাম। Continue Reading →

গল্পঃ ভাড়াটে বউ । পর্ব – ০১

মেয়েটিকে ২ মাসের জন্য বউ হিসাবে ভাড়া করে এনেছে রিয়ান। মেয়েটির নাম রাইসা। খুব দারিদ্র্য পরিবারের মেয়ে বিধায়, বাবা চিকিৎসার টাকা জোগাড় করতে রিয়ানের২ মাসের ভাড়াটে বউ হিসেবে অভিনয় করার এ্যাগ্রিমেন্টটা হাসি মুখে মেনে নিয়েছে। অবশ্য এখানে রিয়ানের কোনো জোর জবরদস্তি ও ছিলোনা।রিয়ান বিরাট বোড়লোক শামছুল হকের একমাএ পুএ সন্তান, Continue Reading →