কবিতা: রঙিন শহর

এই শহরের মানুষগুলো ভীষণ রকম ব্যস্ত।সকাল থেকে মাঝরাত অব্ধি ছুটতে অভ্যস্ত।কারো দিকে কেউ ফিরেও চায়না।চেনা মানুষও যেন অচেনা। পাশাপাশি থেকেও তারা হয়না প্রতিবেশী।দেখাদেখি হলেও কথা হয়না বেশী।অতিথি দেখলে মুখে ভদ্রতার হাসি।খেয়েদেয়ে চলে গেলে হাঁফছেড়ে বাঁচি। বিষাক্ত কালো ধোঁয়া ভেসে বেড়ায় বাতাসে।রোগজীবাণু বাসা বাঁধে প্রতিটি নিশ্বাসে।মশা, মাছি, ছারপোকার অবাধ বসবাস।ডেঙ্গু আর Continue Reading →

বেঁচে থাকার দায়ে বেঁচে আছি

তোমাকে ছাড়া বাঁচবো না,বহু বছর আগে খুব বড় মিথ্যা বলেছিলাম প্রিয়।আমাকে ক্ষমা করে দিও। এ শহরে রোজ রোজ বহু সম্পর্কের বিচ্ছেদ হয়বহু স্বপ্নকে গলা টিপে হত্যা করা হয়,বহু মন ভেঙে দেওয়া হয় কাঁচের ন্যায়।তবু তারা বেঁচে থাকে-অনুভূতি ছাড়া মন নিয়ে,দীর্ঘশ্বাস ভরা বুক নিয়ে,অভিশপ্ত এক জীবন নিয়েআমিও বেঁচে আছি তাদের ন্যায়। Continue Reading →

সঠিক পথের সন্ধানে

ঝরা পাতার মতো ঝরে গেছে আমার এ জীবন।পথ হারা পথিক পাই না কোনো কিছু।দিশেহারা হয়ে আমি হাঁটি পিছু পিছু।দিন পেরিয়ে আসে যখন রাত।জোসনায় রাতে আমি জোনাকিদের সাথে খেলা করি সারারাত।রাত পেরিয়ে যখন হয় সকাল।ঘুম ভেঙে যায় পাখির কিচিরমিচির শব্দে।আমি আবারও হেঁটে যাই।ভোরের স্নিগ্ধ শিশিরে ভেজা ঘাসের উপর দিয়ে।আমার এক একটি Continue Reading →

কবিতাঃ দুরত্বের সম্পর্ক

আমি কখনো বলিনি যে আমাকে ভালোবাসতেই হবে।শুধু চেয়েছিলাম আমাদের খুব ভালো একটা সম্পর্ক থাকুক।আমি চাইনি কখনো আমাদের সম্পর্কটা বিচ্ছেদ হোক।শুধু চেয়েছিলাম আমাদের সম্পর্কটা অটুট থাকুক।আমি চাইনি আমাদের যোগাযোগটা কখনো বিছিন্ন হোক।শুধু চেয়েছিলাম আমাদের যোগাযোগটা সর্বকালের জন্য অটুট থাকুক।আমি চাইনি কখনো আমাদের মাঝে দুরত্ব সৃষ্টি হোক।শুধু চেয়েছিলাম সারাজীবন তোমার পাশে থাকতে।আমি Continue Reading →

এক পৌষের সোমবার

হৃদয় যখন পৌঢ়ত্বে ঠিক, টুপ করে আপনাকে ভালোবেসে ফেলেছিপদ্ম পাতায় জল রেখে ভুলে যাই খোপার ফুলঅবসরে আপনাকে ভাবতে বসে ভোরের সংসারভরা কতোশতো ভুল।দাদাকে আমি পৌষের সাতের কথা বলেছি,সাপ্তাহিক বার আমার মনে রাখতে না পারায় ঠিকঠাক কোনো কাজই রূপায়িত হয় না,লোকমুখে সোমবারের কথা শুনলে শুধু দু’ দণ্ড থমকে দাঁড়াই।আমাদের প্রথম দেখায় Continue Reading →

এক্কা-দুক্কা প্রেম

আমরা এক্কা-দুক্কা করে আবার প্রেমে পড়বো। আজকাল আর এই আধেক প্রেমে কেমন যেন একটা স্যাঁতস্যাঁতে ভাব চলে এসেছে।দিনের এক-তৃতীয়াংশ সময় মুঠোফোনের দিকে তাকিয়ে থেকে,আমাদের চোখে ছানি পড়ে যাচ্ছে,জং ধরে যাচ্ছে আমাদের মনে।বেড়ে যাচ্ছে মনোমালিন্যতা।প্রকৃতি আমাদের অভিশাপ দিচ্ছে দিনের পর দিন। এজন্যই আমরা আবার এক্কা-দুক্কা করে আবার প্রেমে পড়বো। যেভাবে নব্বই Continue Reading →

দম ফুরানো ফানুষ

কতকথা শেষ,চলে গেলো বিস্মৃতিরর আড়ালে,কেন তুমি বলো হৃদ মাঝটা নাড়ালে?ভালোই তো ছিলাম,কেন এলে? ফানুসের মতো গেলে আবার উড়ে চলে।আচ্ছা,ফানুসের ঐ আগুন যখন নিভে যায়,তখন নিচের কেউ একজন তো তাকে পায়।তুমিও কী সব অভিমান রেখে আসবে ফিরে?ফানুসের মতো আসবে আমার তীরে?ফানুস কিন্তু অন্য কোথাও পড়ে,দূরে চলে যায় কোন এক প্রবল ঝড়ে। Continue Reading →

পার্থক্য

তুমি প্রেমে পড়েছিলেআর আমি ভালোবেসে ছিলাম।তুমি মিথ্যা মোহের জালে বেঁধেছিলেআর আমি মায়ার জালে আটকে ছিলাম।তুমি প্রয়োজনে প্রিয়জন করেছিলেআর আমি প্রিয়জন ভেবে তোমার সবপ্রয়োজন মিটিয়ে গেলাম। তুমি হাতে হাত রেখে স্পর্শ খুঁজেছিলেআর আমি খুঁজেছিলাম বিশ্বাস।অথচ সব যেন নিমিষেই ভেঙে গেলদিন শেষে রয়ে গেল শুধু একটা দীর্ঘশ্বাস।তুমি চাইলেই পারতে থেকে যেতেশুরু থেকে Continue Reading →

নির্ভরতার শেষ সম্বল -শরিফুল ইসলাম

নবাগত সৃষ্টি, মাতৃগর্ভ থেকে ভূমিষ্ঠ সন্তানকে;প্রাণ দিলো কে? আল্লাহ্‌।মৃত্তিকা থেকে তৈরি, মানুষ জাতিকে-আশরাফুল মাখলুকাত, সৃষ্টির সেরা বলে সম্মান দিলো কে?ওইতো এক আল্লাহ্‌। চরম হতাশায়, ভগ্ন হৃদয়; অশান্ত মন-কার কাছে সাহায্য চায়?আল্লাহ্‌।মস্তিষ্কের সব পরিকল্পনা যখন ব্যর্থ,আশা যখন নিরাশা;পথ যখন কণ্টকাকীর্ণ, অমসৃণ।অসহায় মন কার কাছে প্রার্থনায় রত হয়?সেই মহান মনিব, আল্লাহ্‌। নাবিক Continue Reading →

শেষ ইচ্ছা- মোঃ ফাফিজুর রহমান

জন্ম নিয়ে প্রথম আমি যে মায়ের মুখটা দেখি,ইচ্ছা করে তারই বুকে লুকিয়ে আমি থাকি। ইচ্ছা করে দিবা রাতি মায়ের ছবি আঁকি,ইচ্ছা করে মাকে নিয়ে সারাজীবন লিখি। ইচ্ছা করে মাকে আমি নয়ন ভরে দেখি,ইচ্ছা করে মায়ের সাথে থাকি পাশাপাশি। ইচ্ছা করে দেখি সদা মায়ের মুখে হাসি,ইচ্ছা করে শুধু আমি মাকেই ভালোবাসি। Continue Reading →

কবিতা – হাজার পাখির মধুর সুরে

হাজার পাখির মধুর সুরেদ্বীন মোহাম্মাদ দুখু ভোর বেলাতে ঐ শোনা যায়কিচিরমিচির পাখির ডাক,শীতের ভোরে কুটুম পাখিরঙিন করে নদীর বাঁক! পাতার ফাঁকে পাখির বাসাবাতাসে দোল খায় দেয় দোল,গাছের ডালে পাখির বাসায়ছোটো পাখির মা মা বোল! টুনটুনি আর চড়ুই পাখিঘরের কোণে করে বাস,ঘরের কোণে মধুর গানেকাটে চাষির বারো মাস। বন বাদাড়ে কোকিল Continue Reading →

শেষ কবিতা

শেষ কবিতা আমি এখনো থাকি সব বুঝে, না বোঝার মতোব্যাথাগুলো ভিতরেই রাখিমনের ক্যানভাসে শুধু,সেগুলোর নকশা আঁকি। ভাবার অধিকার নেইতবুও ভাবি সারাক্ষণ ।পেয়েছি ব্যাথা, হারিয়েছি কথা,সবই এখন স্মৃতির পাতা। আজকে আমাকে ভাববোনিজের লেখা কবিতায়,না হয় স্মৃতির পাতায়রেখে দিবো আমার এই স্মৃতি । শিল্পীর ভুলে আঁকা ছবি যদি হয়বিখ্যাত এক ছবি,তবে আমি Continue Reading →

ভালোবাসা যেমন । আয়শা আহমেদ

আপনি আমাকে ভালোবাসেন?আমি বিশ্বাস করি না।আমিহীনা জীবনযাপনের নাম মৃত্যুদণ্ড?আমি বিশ্বাস করি না। ভালোবাসা এক মুখোশধারী আত্মহত্যা।আলো দেখিয়ে কাছে ডাকে,তারপর…দু’চোখে লেপে দেয় আমৃত্যু অন্ধকার।ভালোবাসা এক প্রবঞ্চণার ডাকনাম,ভালোবাসার ব্যাজ পরে, পৃথিবীময়-বুক চিতিয়ে হেঁটে বেড়ায় স্বার্থান্বেষী মানুষের দল। ভালোবাসায় বিশ্বাস আমি সেদিনই হারিয়েছি,যেদিন আমার রোদ্দুর হাসি নিলাম হয়েছে।যেদিন- আমার শিয়রে চুমু খাওয়া ছেলেটিও,আমার Continue Reading →

বুয়া জিজি ও বুবু বাড়ি

বুয়া জিজিসুলতান খান——————মরুর বুকে জেগেছে আজ লক্ষ কোটি প্রানজালিম শাহীর প্রাসাদ ভেঙে হচ্ছে খান খান।বীর জনতার হুঙ্কারে আজ কাঁপছে আরব মরুতাহিরি আর বেনগাজিতে হচ্ছে সবাই জড়ো।জনতাকে স্তব্ধ করতে চলুক যতো গুলিআপন ঘরে ফিরে না কেউ উড়ুক যতো খুলি।বুর্জুয়াদের মদদে যারা ছিলো আরব রাজাআমজনতার আদালতে হচ্ছে তাদের সাজা।শাসন শোষণ নির্যাতন ছিল Continue Reading →

একা এবং রাজপথ

নিশুতি রাত্র, বিষন্ন রাজপথ মাটি কাঁপিয়ে চলেছে দুএকটি ট্রাক । ক্লান্ত পায়ে প্রিয়তমার আচলের খোঁজে শেষ ক্ষেপ নিয়ে চলেগেছে রিক্সাওয়ালা বিরান রাজপথে একাকি আমি আর তার প্রেতাত্মা। কি যেন নাম ছিল তার? ভুলে গেছি আজ। অবিরাম জীবনের দোলাচলে, নিদারুণ সত্যির বর্মে ঢেকে শামুকের বেশে কখনও। কখনও বা অশ্রুর পর্দায় অবগুন্ঠিত Continue Reading →

ঘুম ঘুম চোখে

ঘুম ঘুম চোখে আজগুবি ভাবি,নেই মনে কোন সুখ,প্রশ্ন হাজার দেখা দেয় মনে,হয়েছি আমি যুদ্ধের সম্মুখ।আজিকার দিনে চোরের উপদ্রব, বাড়িছে অনেক বেশি,কারে দোষ দিব চোরে না মালিকে,সেই সমাধান খুজি।ভাবনায় ভাবনায় মনে আসে প্রশ্ন, চোর হল কিভাবে সে,কিসের জন্য চুরি করিয়া তারা আপবাদে বুক বাঁধে।বিবেক তখন আমায় করে বাদী, নিজের কথা ভাব Continue Reading →

গল্প গুচ্ছ – ৩

রহস্যময় পৃথিবীজামিল আহমদ কেউ হাসে কেউ কাঁদেকেউ সুখে পাগল হয়,কেউ দুঃখে সাঁতার কেটেব্যর্থ হয়ে ডুবে রয়। কেউ ধনী কেউ গরীবকেউ সুখের রাজা হয়,কেউ অভাবে জীবন নিয়েকোনোরকম বেঁচে রয়। কেউ পাপী কেউ ধার্মিককেউ জান্নাত খুঁজে,কেউ মন্দ হারাম কর্মেশুধু দুনিয়াদারি বুঝে। কত রংঙের রঙিন পাখিউড়ে ডানা মেলে,এই পৃথিবী বড়ই রহস্যময়অদ্ভুত নিয়মে চলে। Continue Reading →

কবিতা গুচ্ছ -২

আমরা নারী, আমাদের- সমাজের নিয়ম মানতে হবে,নিজের আকাঙ্ক্ষা ছাড়তে হবে,পুরুষকে খুশি করতে হবে,কারণ??? কারণ আমরা নারী।আমরাই কারো মা কারো বোন কারো স্ত্রী,অথচ আমাদেরই তোমরা ডাকোবেশ্যা কিংবা পণ্যস্ত্রী, আমরা নারী,নব সাজে সজ্জিত প্রেয়সী,শক্তিরুপিণী-অস্ত্রধারিণী।আমরা নারী, সৃষ্টিকর্তার মহান সৃষ্টি। লিখা -অরুনিমা ———————————————————————— আমার চোখের জলে ফুটা তুমি পদ্ম ফুলকোন কাননে রাখবো তোমায় হয় Continue Reading →

কবিতা গুচ্ছ

~ টাকলা ~ মৌমাছি বমি করে মধু‌ জমায় চাকে,বায়ু নিম্নমুখী নিস্ক্রমন হলে সোজা লাগে নাকে।মাথার চুল একবার পড়ে গেলে ‌!চুল আর জন্মায় না কভু টাকে।…………………………………………………………………~যদি হারায়~শিক্ষকের মান,চাষীর ধান,শিল্পীর ‌গান,সরকারের সঠিক অবস্থান,এসব যেথা হতে হারিয়ে যায় !জানবে নিশ্চিত-সেথায় জণগণ আছে হয়ে অত্যন্ত নিরূপায়।……………………………………………………………………~ বডি ল্যাঙ্গুয়েজ~পোষ্যরা মনিবের ‌কাছে কতকিছুই না করে আবদার!মনিব Continue Reading →

ভালোবাসার বোন – মণীষা নায়েক

মা, আমার একটা বোন চাই।একটা সত্যিকারের পুতুল বোন।যে হবে আমার সবসময়ের খেলার সাথী।যার হাসিমুখ দেখে আমি স্কুলে যাব।স্কুলে গিয়ে গর্ব করে বলতে পারবআমার কাছে একটা জ্যান্ত পুতুল আছে।যাকে আমি কাঁদাতে চাইলে কাঁদেহাসাতে চাইলে খিলখিলিয়ে হাসে। মা, আমার একটা বোন চাই।একটা সত্যিকারের শিক্ষার্থী বোনযে হবে আমার টিউশনের ছাত্রী।যাকে পড়াতে বসাব নিয়ম Continue Reading →