যৌতুক প্রথা

আমি নিম্ন মধ্যবিত্ত পরিবারের মেয়ে-আমি দেখতে তেমন আহামরি সুন্দরী না এবংগাঁয়ে রং কিছুটা চাপা।পঁচিশ বয়স হলেও আজও আমার বিয়ে হয়নি কারনআমার বাবা নিম্ন আয়ের মানুষ তাইযৌতুক নামক অভিশাপের গন্ডি পেরিয়ে যেতে পারিনি।আমার ছোট ছোট ভাই বোন গুলোর লেখাপড়া,ও সবার ভরণপোষণে আমার বাবা জর্জরিত।তারপরেও আমার বাবা অসংখ্যবার চেষ্টা করেছেনআমাকে পাত্র পক্ষকে Continue Reading →

না পাওয়ার আকাঙ্খা

একটি তাজা গোলাপ তুলে এনেছি,তোমায় দেবো বলে।ভাবছি,গোলাপটার কত ভাগ্য!সে স্থান পাবে তোমার ঘন কালো চুলের ভাজে।তোমার শোভা বাড়াবে!ফুলের কি আর সে সাধ্য বলো?বরং তোমার খোঁপায় জায়গা পেয়ে,ফুলটাই ফিরে পাবে তার নবযৌবন। ফুলটা যখন দেবো তোমায়,তুমি হয়তো মুখ তুলে চাইবে আমার দিকে।চোখে থাকবে আনন্দের ঝিলিক,ঠোঁটে থাকবে লাজুক হাসি।আমার আর কি চাই Continue Reading →

মনের না বলা কথাগুলো

ছাদের কোণে জড়োসরো হয়ে বসে থাকি,মাথার উপর বিস্তৃত খোলা আকাশকাচের গুড়োর মতো ছড়িয়ে থাকা তারা।এখন আর ছেলেমানুষের মতো তারা গুনি নাতাকিয়ে থাকি না চাঁদের দিকেঝাপসা চোখে তাকিয়ে দেখিকোনো এক অজানা দৃশ্য,ধূসর রঙে ভরা।তবুও আমি বলি,আমি ভালো আছি। নদীর পাড়ে দাঁড়িয়ে শুনি পাড় ভাঙার শব্দযা আর কেউ শুনতে পায় নাশুধু শুনি Continue Reading →

অথচ আমি বন্দি ছিলাম বহুদিন

কতদিন শ্বাস নিতে ভুলে গিয়েছিলাম,আকাশ দেখিনি, চাঁদ দেখিনি, প্রকৃতি দেখিনি!কেমন দমবন্ধ করা পরিবেশ ছিল,কেমন করে রোজ একটু থেকে একটু করে হেরে যাচ্ছিলাম নিজের কাছে। অস্তিত্ব সংকটে ভুগতে ভুগতে মরে যাচ্ছিলাম প্রতিটা ক্ষণে।দিনের শুরু দেখা হতো না, শেষ ও না।দুপুর গড়াতো না, বিকেল গড়াতো না,থমকে ছিলাম আমি।কলরবের এই শহরে মৃতপ্রায় এক Continue Reading →

কবিতা – বার্ধক্যে

কি তেজ, কথায়, চলায়, ফেরায়!কি অসীম সাহসে ছুটে চলে জীবনের গতিতে। বজ্রকন্ঠে কেঁপে ওঠে তেপান্তরের মাঠ,এক মুহূর্তে দাবী করে ওঠে বিশ্ব সংসার তার।নিয়ম অনিয়ম ভেঙে চুরে নতুন পথের সূচনা করে,তৈরি করে বাসযোগ্য নতুন এক পৃথিবী।সব আলো জ্বালাতে কি ভীষণ প্রচেষ্টা! সময় বেড়ে যায়, বয়স বেড়ে বার্ধক্য কখন যেন দোর গোড়ায় Continue Reading →

কবিতাঃ ব্যাক্তিগত তিুম ও অপেক্ষা

ব্যক্তিগত তুমি ডায়েরীর পাতা জুড়ে যত গোলাপ জমা আছে,তার সব পাপড়ি আর্তনাদ করে থেকে থেকে।তোমার জন্য রোজ কাঁদে তারা।তুমি শুনতে পাও না, কখনও পাবে ও না। এক এক করে দিন যাবে, মাস যাবে, বছর পার হবে।তুমি তোমার গতিতে ছুটতে গিয়ে অতীত ভুলে যাবে।আমায় ভুলে যাবে, সব ফেলে চলে যাবে ভবিষ্যতে।আমি ও Continue Reading →

আমি শৈশবে ফিরে যেতে চাই

সেই শৈশব, যেখানে ভোরবেলায় সূর্যের আলো চোখে এসে জানান দিবে যে ওঠার সময় হয়েছে।আঁটসাঁট ঘরে আজকাল খুব দমবন্ধ লাগে আমার। আমি ফিরে যেতে চাই সেই স্কুল ব্যাগে, সাদাকালো স্কুল ড্রেসে, যার শার্টের পকেটে তিন টাকার ইকোনো বলপয়েন্টের কালি গলে বের হয়ে যেত, আর তারপর মায়ের বকুনির ভয়ে আমার কাচুমাচু মুখ। Continue Reading →

পৃথিবী আমাদের – নীলকান্ত দাস

এ পৃথিবী আমার, আমাদেরএবং আমাদের সকলেরএখানে যুদ্ধ হয় আবার প্রতিনিয়তমানুষে মানুষে কখনো বা মানুষ আর জীবানুতে।আমাদের আছে বারুদআছে চে ডু জে 20 ষ্টেলথ,এই আমরাই আকাশে উড়াইআইটি ড্রাগন চরম উল্লাসে।কিংবা মার্কিন এফ 35কখনো বা রাশিয়া র সুখোই এস ইউ 57 । নিকষ কালো আধার চিরেচিনের আকাশ জুড়ে যখনআই টি ড্রাগন এর Continue Reading →

কবিতাঃআমার কি|মোঃশাহিন আলম শান্ত

নবাব সিরাজউদ্দৌলার মৃত্যু স্ব চক্ষুতে উপভোগ করেছিল শত শত মানুষক্লাইভ বলেছিল সবাই হয়েছিল ওইদিন হাসির ফানুস!!শত শত মানুষ নিতো হাতে সেদিন একটি করে ইটইট দিয়ে চালালে লড়াই, বিট্রিশরা ই হতো পতঙ্গ কীট!বাঙালি জাতি সেদিন ই ছিলো কাপুরুষআজো হতে পারে নি ওরা বীরপুরুষ!!!মীর জাফর,মীরান,মোহাম্মদ বেগ ক্ষমতার লোভে বাংলাকে করেছিলো খইঅশান্তি,ধ্বংসের জন্য Continue Reading →

তোমাকে ভালোবাসি

তোমাকে ভালবাসি এরচে অনুপম শ্রী আর কিছু জানা নেই আমার। একজন প্রেমিকের চোখে তার প্রিয়তমার রুপ যে কি অনুপম কি সুশ্রী! এটা শুধু একজন প্রেমিকেই জানে, বেহুদা ___রুপের বর্ণনা দিতে চাইনা তোমার। তোমার রুপের বর্ণনা দিয়ে একটা মহাকাব্য লিখা সম্ভব, তোমার চোখ হরিণির মতো, এক আকাশ মেঘ তোমার কেশে,আমাজনের অচেনা Continue Reading →

প্রিয়তমা

প্রিয়তম!যদি অনুমতি দাও,তবে তোমার বুকের শক্ত হৃদ প্রকোষ্ঠেঘর বানাতে চাই।যে ঘরের বাসিন্দা হবো শুধুই আমি।ভালোবাসার শক্ত খুঁটিতে নিজ হাতে গড়বো সে ঘর,কোন ঝড়ই তা পারবেনা ভাঙতে,পারবেনা করতে তোমায় আমার থেকে পর। প্রিয়তম!যদি একটাবার আমার দিকেভালোবাসার চোখে চেয়ে নিজের চোখে অশ্রু আনোতবে তোমার জন্য পুরো জনম আমি ভালোবেসে অশ্রু আনতে রাজি।যে Continue Reading →

আবার পৃথিবী হবে ভালোবাসাময়

জানো অনিন্দ্য!আজ কতটা দিন হলো তোমার সাথে দেখা নাইক্লান্ত আমি ঘরে বসে বসে সময় কাটাই তোমার ভাবনায়।মনে পড়ে তোমার!সাপ্তাহিক ছুটির একটা দিন তোমার সাথে দেখা না হলে কী ভীষণ রাগটাই না করতে!আমাকে দেখার জন্য অস্থির হয়ে পড়তে!আজ সেই তুমিই আমাকে বলো দেখা না করতে,বাইরে বের না হতে,পৃথিবীর এমন দুর্দশায় আমাকে Continue Reading →

একটা সত্যিকারের বন্ধু হবি!

যখন বিষন্নতার তাপদাহে পুড়বে জীবনতুই কি তখন আমার এক টুকরো মেঘ হবি!মাথার ওপর শীতল ছায়ার পরশ হবি!ভীষণ মন খারাপে যখন কাঁদতে ইচ্ছা করবেতুই তখন বৃষ্টি হয়ে চোখের জল মুছিয়ে দিবি। জীবনে অপূর্ণতার দুঃশ্চিন্তায় যখন ক্লান্ত আঁখিযুগল ঘুমহীন,তুই কি তখন আমার দু’চোখে কোমল প্রশান্তির ঘুম হবি!নির্ঘুম রাত্রিগুলোতে যখন চোখের কার্ণিশ জুড়ে Continue Reading →

মুক্তি চাই মুক্তি দাও

মুক্তি দাও আমায়,মুক্তি দাও তোমাকে ঘেরাস্মৃতির বন্দী কারাগার থেকে।হৃদয়ে কুন্ডলীর মতো পেঁচিয়ে যাওয়াতোমার স্মৃতিগুলো আমাকে ভীষণ কষ্ট দিচ্ছে।এখন আমার শ্বাস নিতেও অনেক কষ্ট হয়।তোমার এই স্মৃতিগুলো আমাকে শ্বাসকষ্টের রোগী বানিয়ে দিয়েছে।আমি খেতে পারিনা,ঠিক মতো ঘুমুতে পারিনাআমি হাসতে পারিনা,কাউকে ভালোবাসতে পারিনা।আমি জীবন্ত লাশে পরিণত হয়েছি।আমার মাঝে আর নাই আমি।তুমি চলে গেছো Continue Reading →

কবিতাঃ- “অঙ্কুরী বৃদ্ধার সমীকরণ”

অপুর্ণতার চাদরে লুকিয়ে থাকা বিষুবরেখা;উদীয়মান তরুণীর কলমের মৃত্যু;আমি আজও পারি নি মানতে;মৃত্যুর রহস্য টা, কেউ পারে নি জানতে;উইপোকার দখলে থাকা ডায়েরি টা;পড়েছিলাম আমি খানিনটা।চার দেয়ালের মাঝে বন্ধী লাশটা;হাসপাতালের ত্রিশ নাম্বার বেডে পড়ে আছে।পায়ে ষোল নাম্বার ট্যাগ লাগানো। অঙ্কুরী বৃদ্ধার অসমাপ্ত আত্মজীবনী;লিখেছে অনেক গল্প;সবকিছু ছিলো অল্প;পুর্ণতা পায় নি কিছুই।মৃত্যু এসেছিলো তার Continue Reading →

সত্য প্রচার

মরিয়া মানব জীবন অধিক সে পাইতে,ভুলে গেল পরকাল দুনিয়ার মহববতে।আলেম বে-আলেম বল আর পীর মাশায়েক,দুনিয়ার প্রতি আকর্ষণ সকলেরই এক। দুনিয়ার মহববত জানো সকল পাপের মূল,কে আছে ভাঙ্গাবে তাদের এ মহা ভুল।পৃথিবী আমাদের নয় আমরা নই পৃথিবীর,এখানে আমরা সবাই অস্থায়ী মুসাফির। সত্য মানতে নারাজ আশ্চর্য মানব জীবন,জীবন যেখানে ধ্বংস সেখানেই তার Continue Reading →

কবিতা-ঠিক সন্ধ্যায়

কবিতা-ঠিক সন্ধ্যায় স্মৃতি গুলো আজ যদি দেয় তোরেবার বার পিছুটানভেবেনিস তুই পড়েছিলি প্রেমেচেনা মুখ সন্ধান। যদি মন চায় বার বার ফিরেদেখাহ হবে রাস্তায়ভেবেনিস তুই ভালো নেই আজছেড়ে সেঁকেলের সে আমায়। হাত যদি তোর লাগে শুণ্যচারিদিকে ফাঁকাফাঁকা মনে হয়ভেবেনিস তুই চাইছিস শুধুফিরে যেতে হাত ধরা সন্ধ্যায়। ছেড়ে গিয়ে তুই বলেছিলি মোরেথাকবি Continue Reading →

এক মুঠো ভাত

আমাদের মতো দিনআনা দিন খাওয়া মানুষের বাড়িতে নতুনের স্বপ্ন দেখা যে মহাপাপ,কেননা যখন’ই স্বপ্ন দেখি সুন্দর এক সকালেরসেই সকালে’ই শুরু হয় পান্তা ভাতের লড়াই,অসুস্থ বাবা মাকে নিয়ে ছুটাছুটিনা হয় ছোট্ট ভাই বোনের একটু দুধের জন‍্য কান্নাএইতো জীবন,তবে কি স্বপ্ন দেখা সাজে।। যখন ভাবি অভিশপ্ত জীবনে কেও একজন এসেআলতা,আলপোনা,আর মিষ্টি কথায় Continue Reading →