সব ছেড়ে চলে যাব একদিন

একদিন সত্যি সত্যিই চলে যাবো এই শহর ছেড়ে

একদিন সত্যি সত্যিই চড়ে বসবো ভুল ট্রেনেভুল টিকেট হাতে নিয়ে

সাবলীল ভাবে নেমে যাবো প্ল্যাটফর্মহীন অজানা স্টেশনে পৌঁছে যাবো কোনো এক অচেনা গন্তব্যে।

একদিন ভোরের আলো ওঠার আগেই কাউকে না জানিয়ে নিরুদ্দেশ হয়ে যাবো।

চিৎকার করতে করতে প্রবেশ করবোএকশ বছর বধির হয়ে থাকা কোনো শহরে।

জন্ম নেওয়া নারির টানে বেড়ে ওঠা শৈশব মহল্লার রকের কাছে গচ্ছিত রাখা যৌবনকালি মন্দির, কাশর ঘন্টা, গোঁসাই বাড়িভাদ্রের আকাশে পেটকাটি,

চাঁদিয়াল, চুর, সাগুদানা, হাতুড়ি মার্কা সূতো, ভকাট্টাসাত চারা, বোম ব্লাস্টিং, ডাংগুটিকেটু, স্টার, সিজার,

ক্যাপিস্টেনের খালি প্যাকেটবালুর মাঠ, তেঁতুল তলা, কামরাঙ্গা মার্বেলকোনো কিছুই আর আটকাতে পারবে না

এই শহর ছেড়ে একদিন সত্যি সত্যিই চলে যাবো।

পাহাড়কে ছেড়ে জল যেমন চলে যায় নদীর কাছেকালো নুলিয়ারা যেমন যায় বিলীনের দিকেহয়তো কোনো এক অমাবস্যার রাতে কাউকে না জানিয়ে পলাতক আসামির মতো পালিয়ে যাবো একদিন সত্যি সত্যিই সব মায়া উপেক্ষা করে

সব পিছুটান ছিন্ন করেএই শহর ছেড়ে চলে যাবোনাম না জানা মরে পড়ে থাকা কোনো এক শহরে

আমি জানি আমার চলে যাওয়ায়এ শহরের কিছু যায় আসবে নাএকদিন সত্যি সত্যিই এ শহরআমিহীন অভ্যস্ত হয়ে যাবে।